Schooling(প্রতিষ্ঠান)

Be-Trustee

আল্লাহ তায়ালা এই দুনিয়া (জোড়া) সব কিছু বানিয়ে একে অন্ধ প্রাকৃতিক নিয়মনীতির ওপর ছেড়ে দিয়ে রাখেননি বরং আলোকিত করেছেন এবং ওহী, অভিজ্ঞতা আর উদ্ভাবনী শক্তিসপন্ন মানুষ কে প্রতিনিধিত্ব করার মর্যাদা দিয়ে। দুনিয়ার সর্বদাই প্রতিটি ক্রিয়া ও তার প্রতিক্রিয়ার ফলাফলের পেছনে শর্ত যুক্ত করে দিয়েছেন। বসবাসের উপযোগী করে মানুষ অবতারিত করেছেন। আর সেই বিধান মানবীয় উৎকর্ষের প্রতিটি ধাপে এবং উন্নতির প্রতিটি যুগে সেভাবে উপকারী, মুক্তি ও কল্যাণের ক্ষেত্রে একই ধরনের নিশ্চয়তা বিধানকারী প্রমানিত হয়েছে। এই *চেতনায় সচেতনতা এমন সব মানুষের জন্য যারা এই পৃথিবীতে বসবাস করে, একই কারণেই তাতে তার মৌলিক প্রকৃতি, যোগ্যতা ও ক্ষমতার পরিপূর্ণ লক্ষ রাখা হয়েছে। যেখানে মানুষকে এবং তার ক্রিয়াকান্ডকে কখনোই হীন করে দেখে না। ব্যক্তিগত, সমষ্টিক কিংবা কোনোভাবেই তার গুরুত্বকে খাটো করে তাকে জন্তু-জানোয়ারের স্তরে নামিয়ে দেয় না। আবার তার ওপর তার যোগ্যতা, প্রতিভা ও ক্ষমতার বাইরে অতিরিক্ত কোন দায়িত্বও চাপিয়ে দেয় না। ‘খাইরুল কুরুন’ জ্বলন্ত নিদর্শন। মানুষের প্রাকৃতিক বৈশিষ্ট্য এতো ঠুনকো নয় যে, বিভ্রান্তির শিকার হবে মনগড়া পথে(দর্শনে) নিজেকে কঠিন পরীক্ষায় নিমজ্জিত করে ধ্বংসোম্মুখ হবে। ৹ সেখান থেকে ফেরা সম্ভব? নিশ্চয়ই; বহমান কাল তাকে দেবে না। তাইতো সহজ – সোজা – মধ্য পন্থা। দীর্ঘ সহজ ও সরল পথ যা, মানবীয় প্রাকৃতিকে পদদলিত করে তার ওপর আধ্যাত্মিক কর্মের বোঝা চাপিয়ে দেয় না।  মানুষের বুদ্ধিবৃত্তিক ইতিহাসের আয়নায় দেখ! মানুষকে যন্ত্রের মধ্যে ফেলে দিয়ে যতো তাড়াতাড়ি সম্ভব আদর্শের (প্রোজেক্ট) বাস্তবায়ন দেখে নিতে চায়। এতে যদি দুনিয়ায় রক্তের নদী বয়ে যায়, প্রাকৃতিক পরিবেশ – প্রতিবেশ বিষাক্ত হয়, মানুষের সামাজিক জীবন কাঠামো তছনছ হয়ে যায়, সংসার সম্পর্কের আস্থা ভাঙ্গে। কিংবা তার অতীত ইতিহাসের অর্জিত পাওনাগুলো সব নিশ্চিহ্ন হয়ে যায়। তাতেও মানবতার কিছু আসে যায়? রেহেম(গর্ভ) সূত্রে  ‘উনস’ (ভাব – ভালবাসা – অন্তরঙ্গ – আন্তরিকতা /মর্মিতা) থেকে উদগত ইনসান প্রকৃতির সাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে একসাথে মিলে মিশে উন্নতির পথে কদম রাখতে চায়। □ প্রতিষ্ঠিত করেছে মনুষ্য বীজের মূল্য আর ধারীণীর (মাতৃত্বের) মর্যাদার উচ্চতা, নিরাপত্তা। এই প্রাকৃতি যখন কল্যাণের দিকে পা বাড়ায় তখন ইসলাম (সমর্পিত যা শান্তি ও স্বস্তি) তাকে আশ্বস্ত করে আশ্রয় দেয়। আবার যখন আকল্যাণের দিকে ধাবিত হয় তখন এই প্রবণতা থেকে তাকে বাঁচিয়ে রাখে। প্রকৃতি এবং প্রয়োজনীয়তা পূরণে তাকে সাথে নিয়ে চলে বিশ্বাসে – সৎকর্মে (শেষ নবীর প্রতিফলন)। প্রয়োজনে বুদ্ধিমত্তা ও হেকমতের সাথে তাকে চলার পথ দেখায়। বীজ থেকে উদ্ভব ছোট চারা গাছ। পূর্বেই যার বেঁচে থাকার উৎস, যাপিত জীবনের বিধান নিশ্চিত করেছেন, নির্দিষ্ট করেছেন ফল, নির্ধারিত মৃত্যুবরণ, আপার অনন্ত জীবনের আঙ্গীকার। এই গাছ যিনি লাগিয়েছেন তিনি পবিত্র, প্রজ্ঞার অধিকারী, সুক্ষ ও ন্যায় বিচারক, জ্ঞানী ও সর্বদ্রষ্টা। যিনি এক নিরপেক্ষতা সমতা ঐক্য। আধুনিক প্রগতিশীলতার সোপান। একমাত্র মালিক। মুক্তি ও স্বাধীনতার জানালা।

Allah Ta’ala did not create this world (pairs) and leave it to the blind natural laws but enlightened it with the dignity of representing people with revelation, experience and innovative power. The world has always put conditions behind every action and the result of its reaction. Man has incarnated by making it habitable. And that provision has proved to be the same kind of guarantee in every step of human excellence and in every age of progress, in the same way in the case of usefulness, liberation and welfare. Awareness in this * consciousness is for all the people who live in this world, for the same reason it has a full focus on its basic nature, ability and power. Where man and his actions are never looked down upon. It does not diminish its importance individually, collectively or in any way and does not reduce it to the level of an animal. Again, it does not impose any additional responsibility on him beyond his qualifications, talents and abilities. ‘Khairul Kurun’ is a burning pattern. The natural inclination of man is not so fragile that he will be deluded and will perish in a fictitious way (in philosophy) by immersing himself in difficult trials. Is it possible to return from there? Of course; The flowing tomorrow will not give him. So easy – straight – middle way. The long, simple and straightforward path that tramples on human nature does not impose the burden of spiritual action on it. Look in the mirror of human intellectual history! He wants to see the implementation of the project as soon as possible by throwing people into the machine. If the river of blood flows in the world, the natural environment is poisoned, the social life structure of the people is destroyed, the trust of family relations is broken. Or all the debts earned in his past history are wiped out. Does it matter to humanity? Man derives from ‘Uns’ (feeling-love-intimacy-sincerity / tenderness) in the formula of Reham (womb) and wants to walk on the path of progress side by side with nature. করেছে Established the value of human seed and the height, security of the dignity of the possessor (motherhood). When this nature takes a step towards welfare, Islam (dedicated which is peace and comfort) assures him and gives him shelter. Again, when he runs towards misery, it saves him from this tendency. Nature and necessity accompany him in faith – good deeds (reflection of the last prophet). If necessary, show him the way to walk with intelligence and wisdom. Small seedlings emerging from seeds. The one who has already confirmed the source of survival, the provision of past life, has determined the fruit, the determined death, the promise of the eternal life. The one who has planted this tree is holy, possessing wisdom, a fine and just judge, wise and omniscient. Who is one neutrality equality unity. The ladder of modern progress. Sole owner. The window of freedom and liberty.

♡ সুন্দর পৃথিবী, আদর্শ সমাজ ও আলোকিত মানুষ: ইসলাম একটি বাস্তবসম্মত ও সার্বজনীন জীবন ব্যবস্থা। তাই এর প্রতিটি অনুশাসন মানব জীবনের সর্বস্তরের উন্নতি সাধনের আদর্শ সোপান। * ভ্রাতৃত্ব বোধ জাগ্রত করণ। পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ আদায়ের (জামায়াতে) কারনে এলাকার মুসল্লীগন দৈনিক পাঁচবার একত্রিত হবার সুযোগ পান। ফলে তাদের মধ্যে পারস্পরিক সম্প্রীতি ও ভ্রাতৃত্ব বোধ জাগ্রত হয়। একে অন্যের(অপরের) সুবিধা আর সমস্যার(অসুবিধা)কথা জানতে পারেন। ফল যথাযথ ব্যাবস্থা গ্রহনে এগিয়ে আসা সহজ হয়। * সাম্য প্রতিষ্ঠা। নামাযে দাড়াবার ক্ষেত্রে কারো জন্য নির্ধারিত স্থান বরাদ্দ না থাকায় ধনী-গরীব ছোট-বড় নির্বিশেষে সবাই এক কাতারে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে দন্ডায়মান হয়। কেউ নিজেকে ছোট বড়, মনিব ভৃত্য ভাবে না। জাতপাত হীন। সামাজিক শ্রেনী বৈষম্য দূরীভূত হয়। সাম্য প্রতিষ্ঠা হয়। * সামাজিক মানসিকতা সৃষ্টি। ইসলাম সামাজিক ধর্ম। ব্যক্তির চেয়ে সমষ্টির গুরুত্ব ইসলাম বেশী। প্রগতিশীল ও আধুনিক। মানব ইতিহাসের শেষ অবধি। আর জামায়াত / ইজতেমায়ী / সমষ্টিক ইবাদাত এ শিক্ষা দেয় যে, ব্যাক্তিগত কল্যাণই কাম্য নয়, সমষ্টি কল্যাণ প্রকৃত কল্যাণ। আর তাই এতে ব্যাক্তির মন মগজ হতে ব্যাক্তি চিন্তা ও ব্যাক্তি কেন্দ্রিকতা দুর হয়ে সমষ্টির চিন্তা ও সমষ্টি কেন্দ্রিকতা বদ্ধমূল হয়।

* শৃংখলা ও নিয়মানুবর্তিতা শিক্ষাদান। যখন মুসল্লীগন নামায পড়তে দাঁড়ায়, তখন সবাই একইসাথে নিয়ত (নিরপেক্ষতা / একমাত্র আল্লাহ্‌রজন্য) করে, তারপরে তাকবীরে তাহরিমা বাঁধে, একসাথে রুকু সিজদাহ করে, একই সাথে নামাজের কার্যাবলী একজন ইমামের পিছনে আদায় করে। এতে সামাজিক জীবনে শৃংখলা আসে। নিয়মানুবর্তিতার অনুশীলন করার দীক্ষা পায়। কোন সামাজিক সমস্যার সমাধান সকলে মিলে একত্রে সম্পন্ন করতে উদ্বুদ্ধ হয়। * নেতা নির্বাচন ও সামাজিক কর্তব্যবোধ। একজন ইমাম নির্বাচন করতে হয়। তার তাকওয়া, পরহেজগারী, যোগ্যতা সর্বজন সমাদৃত ব্যাক্তিত্বকে ইমাম নির্বাচন করা হয়। বিশৃঙ্খলা করে বা জোর পূর্বক কোন অযোগ্য লোককে ইমাম নির্বাচন করা যায় না। সুতরাং নামাজের মাধ্যমে সমাজে নেতা নির্বাচন ও ভাল লোকের মূল্যায়নের শিক্ষা পাওয়া যায়। * শিক্ষার প্রতি আগ্রহ সৃষ্টি। ইল’ম অর্জন। ইবাদাত (জীবনের প্রতিটি মুহুর্ত ফলপ্রসূ বানাতে) সঠিক ভাবে আদায় করতে হলে, তা আদায়ের নিয়ম ও পদ্ধতি শিক্ষা করা আবশ্যক। এভাবে কর্মময় জীবন মানুষকে শিক্ষার প্রতি আগ্রহী করে তোলে। আর আদর্শ জন গন মন তাদের নিরাপদ সমাজ বিনির্মাণ করে। যেখানে স্বাস্থ্য শান্তি নিরাপত্তা সৎ স্বভাব বিরাজমান। শিক্ষার বিকল্প রাখা হয় নাই। * পরিচ্ছন্নতার প্রেরণা। পবিত্র মন, শরীর ও পোশাক নিয়ে নামায(জিকির) আদায় করা আবশ্যক। পবিত্রতা ও পরিচ্ছন্নতার মাধ্যমে ইসলামী সমাজ দৈহিক ও মানসিক দিক দিয়ে পরিচ্ছন্ন পবিত্র হয়ে ওঠে। পাপ মুক্ত সুখী ও সমৃদ্ধশালী পরিবেশ প্রতিবেশ সমাজ রাষ্ট্র গঠনে সুদুরপ্রসারী প্রভাব বিস্তার কারী। শান্তিপূর্ণ প্রগতিশীল উন্নত সমৃদ্ধ পৃথিবীর অঙ্গীকার। * সব মন্দ(মিথ্যা) শয়তানের পক্ষ থেকে। প্রকাশ্য শত্র। প্রতি মুহূর্তের দ্বিধা-দন্দ্ব ও লড়াই। অবশ্যই, মানবাত্নার হেরে না যাওয়া। # ফিরে আসা * স্বাধীনতার নিশ্চয়তা পরিপূর্ণ মুক্তির সোপান। উপকরণের নিষিদ্ধতার সচেতনতা। পবিত্রতায় ফিরে আসা। * মহান আল্লাহ রাব্বুল ইজ্জত বলেন, “নিশ্চয় নামায অশ্লীলতা ও নিষিদ্ধ কাজ হতে বিরত রাখে।” যাকাত মালের পবিত্রতা নিশ্চিত করে। নিরাপদ করে আশান্তি দূরে রাখে। * মর্যাদার চূড়ান্ত। ‘মেরাজ’। আমীন। ♧

♡ Beautiful world, ideal society and enlightened people: Islam is a realistic and universal way of life. Therefore, each of its rules is an ideal step for the improvement of all levels of human life. * Awakening the feeling of brotherhood. Due to the five daily prayers (in Jamaat), the worshipers of the area get the opportunity to gather five times daily. As a result, a sense of mutual harmony and brotherhood is awakened between them. You can know each other’s advantages and disadvantages. The result is that it is easier to come up with the right measures. * Establishment of equality. Since there is no space allotted for anyone to stand in prayer, rich and poor, big and small, all stand shoulder to shoulder in a row. No one thinks of himself as small or big, master or servant. Caste inferior. Social class inequality is eliminated. Equality is established. * Creating social mentality. Islam is a social religion. Islam is more important to the community than to the individual. Progressive and modern. Until the end of human history. And Jamaat / Ijtemayi / collective worship teaches that personal welfare is not desirable, collective welfare is real welfare. And so in this the individual thoughts and individual centrality are removed from the mind of the individual and the collective thoughts and collective centrality are ingrained.

* Teaching discipline and discipline. When the worshipers stand up to perform the prayers, they all perform the niyyat (neutrality / for the sake of Allah alone) at the same time, then tie the tahrima in takbeer, bow and prostrate together, and at the same time perform the prayers behind an imam. It brings order in social life. Initiated to practice discipline. Everyone is motivated to work together to solve a social problem. * Leader selection and sense of social duty. An Imam has to be selected. His taqwa, abstinence, merit, all respected personalities are selected as Imams. No incompetent person can be elected Imam by chaos or coercion. So through prayers one learns to select leaders in the society and evaluate good people.

* Creating interest in education. Acquisition of knowledge. In order to perform Ibadat (to make every moment of life fruitful) in the right way, it is necessary to learn the rules and methods of performing it. Thus working life makes people interested in education. And the ideal public mind builds their safe society. Where health, peace, security and honesty prevail. There is no alternative to education. * Motivation for cleanliness. Prayers (zikir) must be performed with a pure mind, body and clothes. Through holiness and purity, Islamic society became physically and mentally clean and pure. A sin-free, happy and prosperous environment has a far-reaching effect on the formation of a social state. The promise of a peaceful, progressive, developed and prosperous world. * All evil (lies) from the devil. Public enemy. Every moment of hesitation and struggle. Of course, humanity does not lose. #Return * The guarantee of freedom is a step towards complete liberation. Awareness of prohibition of materials. To return to holiness. * Allah Almighty says, “Surely prayer forbids indecency and forbidden acts.” Zakat ensures the sanctity of goods. Safely puts away unrest. * The ultimate in dignity. ‘Meraj’. Amen. ♧

৹ নির্দেশসমূহের প্রত্যাখ্যান, অস্বীকার হিসেবে গণ্য। সার্বভৌম এই দ্রোহের অনিবার্য পরিনতি, যুলুম – নির্যাতন। ^ বস্তুতান্ত্রিক আবিষ্কারের যোগ্যতা অথবা সম্ভাবনাময় প্রতিভা প্রদর্শন বা সৃজনশীল মস্তিষ্ক, যান্ত্রিক উন্নতি, কি মানবিকতাকে ছাপিয়ে উৎকর্ষতার মানদন্ড? যার নিচে মানুষ চাপা পড়ে যায়। মানুষের গুন সমূহ বা স্বভাব ধর্মের পরিনতি? নীতি আদর্শ কি তাহলে মুখের বুলিতে(কথায়) আর বইয়ের পাতায়। স্বার্থজনক ও সুবিধাবান্ধব হলে ভাল। না হলে আস্তাকুঁড়। এ কেমন নেশাগ্রস্ততা, অন্ধকার আবেষ্টন! শিক্ষার(অহম) অজ্ঞতা। দীক্ষায়(প্রতিফলন) নাই। লোভ এমন উচ্চাকাঙ্খা যা লাভ করলে তোমাকে পরবর্তী লক্ষে ছুটিয়ে অহংকারী বানিয়ে প্রভূত্বে তোমার আশপাশ বিষাক্ত করে ধ্বংসে মেতে উঠবে। প্রলয়ংকারী ও সর্বগ্রাসী রুপ সমগ্র দুনিয়ায় ছেয়ে গেছে। শুনতে কি পাওনা, দেখতে কি চাও না। ❤🧡💛💚💙💜 আহ্বান :- মিথ্যার থেকে সত্যে। রিয়া(লোক দেখানো) থেকে ইখলাসের (হক তাআলার দিকে), সন্দেহ থেকে দৃঢ় বিশ্বাসের দিকে, আসক্তি থেকে ত্যাগের দিকে, লোভ থেকে দানশীলতার দিকে, অহংকার থেকে বিনয়ের দিকে, শত্রুতা থেকে শুভেচ্ছা দিকে, গুনাহ (অশ্লীলতা) থেকে পবিত্রতার দিকে,একতার হিজরত।…. ■ মানব জাতির দুর্ভাগ্য ও আশান্তির কারন, একমাত্র বিপ্লব ‘আখিরাতের’ দিকে নিবিষ্ট হয়ে তাদের সমস্ত কার্যকলাপ সেই লক্ষে ধাবিত না করা। শুধু বৈষয়িক উন্নতিকে বেছে নেয়া। কালে যা, মানব জাতির ইতিহাসে ভয়াবহ দুর্ঘটনা। ঐতিহাসিক পরম্পরা তার সাক্ষ্যদাতা। দুর্নীতি ও কদাচার থেকে মুক্তি – মূল্যবোধ – যা পবিত্র, সহজ সরলতা, উপকারী জ্ঞানের ব্যাপকতা, স্বয়ংসম্পূর্ণতা (পবিত্র অন্তর যেটা লোভী নয়, তারা পেটে পাথর বাঁধে কিন্তু অন্যায্য অন্যায় থেকে বাঁচে আর অধীনস্থদের বাঁচায়)। সামঞ্জস্যতার বিকাশ। লয় ক্ষয় হবে সবই। অন্তর আত্নার অবক্ষয় মেনে নেয়া যায়?

Rejection of those instructions is considered as denial. The inevitable consequence of this sovereign rebellion is oppression. যোগ্য Material Discovery Qualification or Potential Talent Demonstration or Creative Brain, Mechanical Improvement, Is It a Criteria for Excellence Over Humanity? Under which people are crushed. The consequences of human virtues or nature of religion? What is the policy norm then in the word of mouth (words) and in the pages of the book. It is better if it is selfish and convenient. If not, dump. What kind of intoxication, dark obsession! Ignorance of education (ego). There is no initiation (reflection). Greed is an ambition which, if gained, will drive you to the next goal, make you arrogant, poison your surroundings in domination, and destroy you. The destructive and omnipresent form has spread all over the world. You don’t want to hear, you don’t want to see. Call: – From lies to truth. From Riya (showing people) to Ikhlas (towards Allah), from doubt to conviction, from addiction to renunciation, from greed to generosity, from arrogance to humility, from enmity to goodwill, from sin (obscenity) to holiness, migration of unity. …. ন The reason for the misfortune and unrest of the human race, the only revolution is to focus on the ‘Hereafter’ and not run all their activities towards that goal. Choosing only material advancement. What a terrible accident in the history of the human race. Historical tradition bears witness to this. Freedom from corruption and malpractice – values ​​- which are sacred, simple simplicity, abundance of useful knowledge, self-sufficiency (holy heart that is not greedy, they bind stones in the stomach but save from unjust injustice and save subordinates). Development of consistency. Everything will decay. Can the decay of the inner soul be accepted?

# মানুষের সাধারণ বৈশিষ্ট্য। ইনসাফ আদল প্রতিষ্ঠায় শর্ত।

♧ আদালত : যে সুদৃঢ় শক্তি মানুষকে তাকওয়া ও শিষ্টাচার অবলম্বন এবং মিথ্যা আচরণ থেকে বিরত থাকতে উদ্বুদ্ধ করে। এসব গুন সম্পন্ন ব্যক্তি ‘আদিল’।

@ জাবত : যে স্মৃতিশক্তি দ্বারা মানুষ শ্রুত বা লিখিত বিষয়কে ‘বিস্মৃতি ও বিনাশ থেকে রক্ষা করতে সক্ষম হয় এবং যখন ইচ্ছা তা স্মরণ করতে পারে, তবে বলে।

□ সিকাহ : আদালত ও জাবত উভয় গুন পূর্নভাবে বিদ্যমান থাকে।

♡ সাক্ষ্যদাতার পবিত্রতার অর্জন – দানশীলতা ও উদারতা প্রাপ্ত(হৃদয়বান), মহানুভব ক্ষমাশীল, স্বাধীনতাপ্রাপ্ত, সুন্দর, বাহাদুর, বিনম্র আচরণ, (প্রয়োজনে কঠোর), নিয়ন্ত্রিত প্রবৃত্তি।

○ নিশ্চয়ই, তাঁর সাক্ষ্যে ‘এস্তকামাত’ (দৃঢ়পদ) থাকে সর্বকালে সব সময়।

° সচেতনতার জয়, আর সুন্নাতই (ইল’ম) সচেতনতা।

Common human characteristics. Conditions for the establishment of justice.

♧ Court: The strong force that motivates people to adopt taqwa and etiquette and refrain from lying. A person with these qualities is ‘Adil’.

@ Jabat: The power of memory by which a person is able to protect the heard or written thing from ‘oblivion and destruction’ and when he wants to remember it, he says.

□ Sikah: Both the court and the jabat are fully present.

❤ Achieving the holiness of the witness – generosity and philanthropic, hearti, forgiveness, freedom, beauty, bravery, humility, (strictly if necessary), controlled instinct.

○ Surely, in his testimony there is ‘estkamat’ (firmness) all the time.

°Awareness triumphs, and Sunnatai (Ilm) awareness.

হায় আফসোস! আয়নাতে এই মুখ। – আশা ও ভরসা ও কল্পনাবিলাসী পরিকল্পনা মানুষকে ধ্বংস ও বরবাদ করে দিয়েছে। মুখে কথার ফুলঝুরি আছে, কিন্তু কাজের কোন উদ্যোগ নেই। ইল’ম ও মা’রিফত (হেকমত / পূর্ণাঙ্গ পরিচিতি) আছে, কিন্তু(তার দাবি পূরণ করবার জন্য) ধৈর্য নেই। ঈমান আছে, কিন্তু য়াকীন (আস্থা) নেই। মানুষের অবয়ব চোখে পড়ে, কিন্তু তাতে ঘিলু (ফিকাহ) নেই। দর্শনার্থীদের ভিড় আছে, হৈ-হট্টগোল ও আছে, কিন্তু আল্লাহর বান্দা চোখে পড়ে না, যার অন্তর আছে, মন আকৃষ্ট হবে। লোকজন আসে, অত:পর চলে যায়। সব কিছু জেনেছি অত:পর বেমালুম ভূলে গেছি। প্রথমে একটি বস্তুকে হারাম করেছি, অত:পর তাকেই আবার হালাল করে নিয়েছি। আমাদের ধর্ম কী? মুখের একটি মিষ্টি শব্দোচ্চারণ। যদি প্রশ্ন করা হয়, “হিসাব-নিকাশের দিনে তুমি বিশ্বাসী?”

আয়নার জবাব।, “হ্যাঁ।” প্রতিফল দিবসের মালিকের কসম! মিথ্যার প্রতিধ্বনি। মু’মিনের চরিত্র ও শান – কর্মফল দিবসে বিশ্বাস এবং ঈমান ও ইয়াকীনের অধিকারী। ইল’ম এর সাথে হিল’ম (ধৈর্য্য/বিনয়)। আর, হিল’ম (পরিপূর্ণ বিশ্বাস ও আস্থা) এর সাথে ইল’ম(জ্ঞান)। বুদ্ধিমান। নরম প্রকৃতি। উত্তম ভূষণ। সংযম। যা দারিদ্র ও অভাব-অনটনকে ঢেকে দেবে। ধনী হয়ে গেলেও মধ্যম পন্থা পরিত্যাগ করবে না। ব্যয়ের ক্ষেত্রে সে মিতচারী (অপচয়কারী নয়) । বিপর্যস্ত মানুষের ক্ষেত্রে প্রসারিত হস্ত ও উন্মুক্ত মন। ন্যায় ও সুবিচারের হবে জোর তৎপর ও অনড়। কারো প্রতি ঘৃণার সৃষ্টি হলেও তার প্রতিকূলে বাড়াবাড়ি করবে না। ভালবাসার ক্ষেত্রেও কারো সাথে শরিয়তের সীমারেখা অতিক্রম করে না।

Alas! This face in the mirror. – Hope and trust and imaginative plans have destroyed and ruined people. There is a spark of words in the mouth, but there is no initiative of work. There is knowledge and wisdom (wisdom / full acquaintance), but there is no patience (to fulfill his demands). There is faith, but there is no trust. The human form is visible, but it does not have brains (fiqh). There is a crowd of visitors, there is a lot of noise, but the servant of God does not fall in sight, who has a heart, the mind will be attracted. People come and go. I knew everything and then I forgot unknowingly. First I made an object haram, then I made it halal again. What is our religion? A sweet expression on the face. If asked, “Are you a believer in the day of reckoning?”

Mirror replies, “Yes.” I swear by the owner of the day of retribution! Echoes of lies. The character and dignity of the believer – the one who believes in the Day of Judgment and is entitled to Iman and Yaqeen. Ilm with heelm (patience / humility). And, Heelm (knowledge) with Ilm (full faith and trust). Intelligent. Soft nature. Good decoration. Restraint Which will cover poverty and deprivation. Even if you become rich, you will not give up the middle way. He is frugal (not wasteful) in spending. In the case of troubled people, outstretched hands and open minds. Justice and fairness will be strong and steadfast. Even if you create hatred towards someone, do not exaggerate against him. Even in the case of love, it does not cross the boundaries of Shariah with anyone.

▪︎ করো ছিদ্রান্বেষন করে না, কাউকে তিরস্কার কিংবা ভৎসনা করে না। অর্থহীন বিষয়ের সঙ্গে যেমন তার সম্পর্ক থাকে না, তেমনি ক্রীড়াকৌতুক ও হাসি-তামাসার সঙ্গেও সে কোন সম্বন্ধ রাখে না। সে চোগলখুরী করে না, যে বিষয়ে তার অধিকার নেই, তার পিছনে ধাবিত হয় না, যা তার ওপরে ওয়াজিব সে ব্যাপারে অস্বীকৃতি জানায় না এবং ওজরখাহীর বেলায় সীমা অতিক্রম করে না। সে অপরের দুঃখ-কষ্টে উৎফুল্ল হয় না। এবং অপরের অন্যায়েকেও সমর্থন করে না। তার সালাতে ভয়-মিশ্রিত বিনয় থাকে। সে আলিম (জ্ঞানী ও পারদর্শী) সমাজের সহচর্য অবলম্বন করে। ‘ইলম এর খাতিরে সে চুপ থাকে, শুধু গুনাহ থেকে বেঁচে থাকা এবং সওয়াব ও ফায়দা হাসিলের জন্য কথা বলে। পুণ্য লাভ ঘটলে সে খুশি ও আনন্দে উদ্বেলিত হয়, আর ত্রুটি বিচ্যুতি ঘটলে আল্লাহর দরবারে তওবা-ইস্তিগফার (অনুশোচনার সঙ্গে ক্ষমা প্রার্থনা) করে। কারো তরফ থেকে দিলে চোট পেলে ক্ষমার মধ্যেই তার উপশম খোঁজে। কেউ তার সঙ্গে মূর্খজনোচিত আচরণ করলে সে ধৈর্য, সহিষ্ণুতা ও বুদ্ধিমত্তার আশ্রয় গ্রহণ করে। জুলুম করলে করলে সে সবর করে, কেউ তার অধিকারের ক্ষেত্রে বেইনসাফী করলে সে ইনসাফের দন্ড হস্তচ্যুত হতে দেয় না। আল্লাহ্‌ ভিন্ন কারো আশ্রয় ভিক্ষা করতে সে রাযী হয় না। জনসমাবেশে সে মর্যাদাবান এবং নির্জনে শোকর-গুজার আল্লাহ প্রদত্ত রিযক লাভে সে তৃপ্ত, সুখ-শান্তি ও আরাম-আয়েশের মধ্যে কৃতজ্ঞ, সংকট ও পরীক্ষার মৃহুর্তে ধৈর্যশীল, গাফিলদের মধ্যে যিকরকারী এবং যিকরকারীদের মধ্যে ইস্তিগফারে লিপ্ত। এসবই অসহাব-ই-রসুল সাল্লাললাহু আলাইহি ওসাল্লামের শান।

○ প্রতিবিম্ব (ফাসিক) এর দোয়া – ইয়া আল্লাহ গাফিলতির মুহুর্ত সমূহ (যার হিসাব দিতে হবে / যা ফেরানোর সাধ্য নাই) হিফাজত কর। আমীন। ইয়া রহমান ইয়া রহিম ইয়া গাফুর ইয়া আরহামার রহিমীন ইয়া আ’লিউ ইয়া হালিমু ইয়া কারিমু ইয়া সালাম। # তাকওয়াই(আল্লাহ সুবহানু তা আ’লাকে চিনতে পারা ও মানার যোগ্যতা) সর্বোত্তম সামগ্রী এবং প্রকৃত শক্তি। দুশমন অপেক্ষা আল্লাহ্‌র অবাধ্য বেশী ভীতিপ্রদ। গুনাহ শত্রুর অপকৌশল, অপপ্রচার আর অপপ্রয়াস, অপব্যবহার এর চেয়েও মানুষের জন্য অধিকতর ভয়াবহ ও বিপদজনক। আমরা শত্রুর সঙ্গে যুদ্ধ করি এবং তাদের গুনাহ কারনেই আমরা তাদের ওপর বিজয়ী হই।

• জাহিলী যুগে প্রত্যেক প্রতিজ্ঞা মিত্র অপরের প্রতিজ্ঞা মিত্রের নিকট এই আশা ভরসা রাখত যে, সে পারস্পরিক মিত্রতা চুক্তির হক আদায় করবে এবং তা পূরণ করবে চাই কি তা জুলুম সর্বস্ব হোক, অন্যায় হোক অথবা তাতে আল্লাহ ও রাসুল (দ:) এর অবমাননার হোক। ইসলাম ভিন্ন অন্য কোন আশ্রয় না নেওয়া চাই এবং আল্লাহ তাঁর রাসুল (দ:) ও মুমিনদের পরিত্যাগ করে অপরের কাউকে যেন বন্ধু হিসাবে গ্রহন না করে। আঁ হযরত (সা) শর্তহীন ভাবে কাউকে সাহায্য সহযোগিতা ও সমর্থন প্রদানে নিষেধ করেছেন এবং বলেছেন, ইসলামে কোন অন্যায় অন্যায্য মিত্রতা ও যুথবন্দী নেই।

° মুমিনুরা পরস্পর ভাই ভাই। অতএব, তোমাদের ভাইদের পরস্পরের মধ্যে সন্ধি ও সমঝোতা স্থাপন কর এবং আল্লাহ্‌র করুণা লাভ কর।।

▪︎ Do not gossip, do not scold or scold anyone. Just as he has nothing to do with meaningless things, he has nothing to do with sports and jokes. He does not gossip, does not chase after what he has no right to, does not deny what is obligatory upon him, and does not go beyond the limits in the case of excuses. He does not rejoice in the sorrows of others. And does not support the injustice of others. His prayers contain fear-mixed humility. He associates with the learned (knowledgeable and skilled) society. For the sake of knowledge, he is silent, only to avoid sins and to seek rewards and benefits. When virtue is gained, he is overwhelmed with happiness and joy, and when error occurs, he repents to Allah (seeks forgiveness with remorse). If he gets hurt from someone, he seeks relief in forgiveness. When someone treats him foolishly, he takes refuge in patience, forbearance and intelligence. He is patient when he is wronged, he does not allow the punishment of justice to be waived if someone is unjust in his rights. God: He does not agree to beg for shelter from anyone else. In public gatherings he is grateful for the God-given sustenance of dignity and solitude. All these are the glory of Ashab-i-Rasulullah (peace be upon him).

○ Prayer of reflection (Fasiq) – O Allah, protect the moments of negligence (which must be accounted for / which cannot be reversed). Amen. Ya rahman ya rahim ya gafur ya arhamar rahimin ya a’liu ya halimu ya karimu ya salam.

# Taqwa (the ability to recognize and obey Allah Subhanahu wa Ta’ala) is the best material and true power. Disobedience to God is more frightening than the enemy. Sin is more dangerous and dangerous for human beings than the enemy’s tactics, propaganda and attempts, abuse. We fight the enemy and because of their sins we are victorious over them.

• In the age of ignorance, every Promising Ally relied on the Promising Ally of the other to fulfill the right of the Mutual Allied Agreement and to fulfill it whether it be oppression, injustice or contempt of Allah and His Messenger (pbuh). I do not want to take refuge in anything other than Islam and Allah should not abandon His Messenger (pbuh) and the believers and accept anyone else as a friend. The Prophet (peace and blessings of Allaah be upon him) unconditionally forbade giving help, cooperation and support to anyone and said that there is no unjust alliance or grouping in Islam.

° Believers are brothers to each other. Therefore, make peace between your brothers and seek the mercy of Allah.

💚  আল্লাহ্‌র সমীপে জ্ঞানবানদের গৃহীত আবেদন সমূহ : নিয়ামত সমূহ  –

৹ আমরা আপনাকে মাখলুকের অনর্থক সৃষ্টিকর্তা হওয়া হতে পবিত্র বলে বিশ্বাস করি। সুতরাং আপনি আমাদের দোযখ হতে বাঁচান। 

৹ হে আল্লাহ! আমরা এজন্যই দোযখ হতে পরিত্রাণ চাই, এতে প্রকোপকারীগন অবিচারী(অবিশ্বাসী) হয় এবং অনন্তকাল থাকার জন্য যাকে আপনি তথায় প্রবেশ করান, সে সম্পূর্ণ লাঞ্ছিত হয় এবং তার সহায় কেউ থাকে না। আর আপনি ঈমানদারগনকে লাঞ্ছিত করবেন না বলে ওয়াদা দিয়েছেন। সুতরাং আমরা ঈমান এনে এই দরখাস্ত করছি। অতএব আমাদের কুফরির শাস্তি হতে মুক্তি দিন এবং ঈমান গ্রহণ করার অবস্থায় যে দয়া দাক্ষিণের ওয়াদা  দিয়েছেন তা আমাদের প্রতি প্রদান করুন।

৹ হে রব! আমরা সৃষ্টি জগতে গবেষণা করে আপনার একত্বের প্রমাণ করতঃ এবং সত্যের প্রচারক ও আহ্বায়ক হযরত মুহাম্মদ (দ:) হতে প্রত্যক্ষভাবে হোক অথবা পরোক্ষভাবে হোক আপনার প্রতি ঈমান আনার ডাক শুনেছি। সুতরাং আমরা যুক্তিগত ও উক্তিটি প্রমাণে স্বপ্রমাণিত করে ঈমান এনেছি।

* এই আবেদনে তৌহিদের সাথে সাথে রিসালাতের   উপরও ঈমান আনার কথা উল্লেখ হয়েছে। অতএব এতে ঈমানের উভয়ে শাখা তাওহীদ ও রিসালাতের কথা পরিপূর্ণ হয়ে গেল। ৹ হে রব! আমাদের পরবর্তী আবেদন হল, আমাদের ছোট বড় সকল গুনাহ মাফ করে দিন, যাতে আমরা নেককারদের সাথে মৃত্যুবরণ করতে পারি। অর্থাৎ আমাদের  শেষ অবস্থা যেন ভাল হয়।

৹ হে আমাদের রব! দোযখ ও লাঞ্ছিত হতে মুক্তির জন্য এবং বড় গুনাহ ও ছোট গুনাহ হতে রক্ষা পাওয়ার জন্য যেরূপ আবেদন আপনার নিকট করেছি তদ্রুপ আবেদন জানাচ্ছি আমাদের ফায়দা ও হিতের জন্য। এই মর্মে যে, আমাদের সেই বস্ত অর্থাৎ বেহেশত প্রদান করুন আর প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন আমাদের নিকট আপনার নবীর মাধ্যমে। আর এই বেহেশত ও সুখ ভোগের সুযোগও এমনভাবে প্রদান করুন যার পূর্বে কিয়ামতের দিন কোন  লাঞ্ছিনা ও দুঃখ যেন পোহাতে না  হয়। কারন, আপনি ওয়াদা খেলাপ করতেই পারেন না।

* মোটকথা, আপনি নেককারগনের  জন্য সর্বপ্রকারের মর্যাদা প্রদানের কথা ঘোষণা করেছেন, আমাদেরকেও তাঁদের বৈশিষ্ট্যে অটল রেখে তাঁদের সমপর্যায়ের মর্যাদা সম্পন্ন করুন এবং সেই ওয়াদার পাত্র করুন।।

💜 Requests of the wise to Allah: Blessings –

৹ We believe that you are holy to be the useless creator of creation. So you save us from hell.

O Allah! That is why we seek deliverance from Hell, in which those who cause it are unjust (unbelievers), and whomsoever You admit into it to abide therein, is utterly humiliated, and has no helpers. And you promised not to humiliate the believers. So we are making this request in faith. So deliver us from the punishment of disbelief, and grant us the mercy which you have promised us in the state of faith.

O Lord! We would prove your oneness by researching the world of creation: and we have heard the call to believe in you, directly or indirectly, from Hazrat Muhammad (pbuh), the preacher and caller of truth. So we believe in the logic and the statement by self-proof.

* In this petition, it is mentioned that along with Tauhid, there is also belief in Risalat. Therefore, both the branches of faith, Tawheed and Risalat, were fulfilled in it.

O Lord! Our next request is to forgive all our sins, big and small, so that we may die with the righteous. That means our last condition should be good.

O our Lord! I am appealing to you for our benefit and benefit, just as we have appealed to you for deliverance from Hell and humiliation and for protection from major and minor sins. In this sense, give us that object, that is, heaven, and promise us through your prophet. And give the opportunity to enjoy this paradise and happiness in such a way that no humiliation and sorrow will be borne on the Day of Resurrection before it. Because you can’t break a promise.

* In short, you have declared to give all kinds of dignity to the righteous, keep us steadfast in their qualities and fulfill their equal status and fulfill that promise.

♡ জাগ্রত অন্তর (চেতনা) : জাগ্রত রাখা যে, একদিন আল্লাহ তাআলার দরবারে আমাকে আমার সমস্ত কর্মের জবাবদিহি করতে হবে। কাজেই আমার এমন কাজ করা উচিত হবে না, যা (অঙ্গীকার ও অকল্যান, অপবিত্র / মিথ্যা অথবা মিথ্যার সাথে সহাবস্থান) তাঁর অসন্তুষ্টির কারণ হবে। এই ভয়ভক্তি ও * চেতনার নাম ‘তাকওয়া’। এ ভার বহন করা পরহেযগারী।

# ইখলাস নিরপেক্ষতা তা ঈমানের দাবীও বটে। নিয়তের বিশুদ্ধতা (ইখলাস / মোহ মুক্ত) আমৃত্যু সংরক্ষণ করা চাই। জীবদশার সকল কর্ম চিন্তা কাণ্ডে ইল’ম ও আমলে অন্তর জীবিত।

♧ প্রাণের ইসলাম (স্বভাব / শ্রেয়তা) মমতার ফোঁড়ে সম্পর্কের জমিনে এমন মধুর নকসা ফুটিয়ে তুলে সর্বাবস্থায় (একমাত্র তাই রেহেম সূত্রে রহমানের প্রার্থনায়) শ্বাশত সুন্দর ও পবিত্র যার উচ্ছেদের একাত্নতায় সবই তাই সময়তে তার কি এসে যায়। মনোনীত (জ্ঞানস্তর / সংস্কৃত- sublimated)। পরিপূর্ণ (নিয়ামত / উন্নীত)।

Awakened Heart (Consciousness): Keeping awake that one day I will have to answer for all my actions in the court of Allah. Therefore, I should not do anything which will cause him displeasure (coexistence with promise and impurity, unholy / false or coexistence with false). The name of this fear and * consciousness is ‘taqwa’. It is prudent to carry this burden.

# Ikhlas neutrality is also a demand of faith. Purity of intention (sincerity / free from delusion) wants to preserve death. All the actions of the life stage are alive in the heart of knowledge and time.

The Islam of the soul (nature / superiority) is such a sweet design in the ground of relationship in the boil of love, in all circumstances (only in the prayer of Rahman in the Sutra Rahman) is eternally beautiful and holy, in the loneliness of eviction, everything comes to him in time. Nominated (knowledge level / Sanskrit-sublimated). Full (blessing / promotion).

৺ নিশ্চয় আল্লাহ তা’আলা এই ইসলাম (ধারাবাহিকতায় সর্ব শেষ সংস্করণ) যুগে যুগে যাকে তিনি নিজের জন্য ও স্বীয় বিশিষ্ট বান্দাদের জন্য মনোনীত করেছেন। কিতাব দ্বারা সম্মান দান করেছেন এবং এর মাধ্যমে সত্য ও মিথ্যার পার্থক্য রেখা টেনে টেনে দিয়েছেন।

৹ ইরশাদ হচ্ছে : “আল্লাহর নিকট থেকে তোমাদের নিকট এসেছে এক জ্যোতি ও সুস্পষ্ট কিতাব। যারা আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভ করতে চায় এর দ্বারা তিনি তাদেরকে শান্তির পথে পরিচালিত করেন এবং নিজ অনুমতিক্রমে অন্ধকার থেকে বের করে আলোর দিকে নিয়ে যান এবং ওদেরকে সরল পথে পরিচালিত করেন।” – সুরা আল মায়িদা : 15-16 আয়াত।

৹ ”আমি সত্যসহই কুরআন অবতীর্ণ করেছি এবং তা সত্যসহই অবতীর্ণ হয়েছে। আমিতো তোমাকে কেবল সুসংবাদদাতা ও সতর্ককারীরুপে প্রেরণ করেছি।” – সুরা ইস্ রা : আয়াত 105.

৹ আল্লাহ তা’আলা শেষ রাসুল হযরত মুহাম্মদ (দ:) কে প্রেরণ করেছেন এবং তাঁর ওপর স্বীয় গ্রন্থ অবতীর্ণ করেছেন।

৹ যা মুক্তির দিশারী :- যখনই পথভ্রষ্ঠতা, মূর্খতা, পেরেশানি ও ভীষণ মানসিক অস্থিরতার মধ্যে মানবতা নিমজ্জিত ও হুমকির সম্মুখীন হবে। ফিতনা (পরীক্ষা) – ফাসাদ (বিশৃঙ্খলা) জেঁকে বসবে। দাবিয়ে রাখা হবে । কল্যাণ (ইল’ম) মঙ্গল (প্রজ্ঞা / বিনয়) চলে যাবে। গোমরাহীতে লিপ্ত হবে। মৃর্খতা (মন চাহি) ও গোমরাহীর মধ্যেই জীবনে মানে খুঁজবে।

৹ আর আমলে কিতাব দেখাবে স্বাধীনতার ও বিজয় পথ :- ইচ্ছা / মিথ্যা / আকৃতি পুজা , যুদ্ধ বিগ্রহ, পারস্পরিক ঘৃণা বিদ্বেষ অশ্লীলতা প্রভৃতির মন্দ রক্ষার মাধ্যমে।

৹ অস্বীকারকারী অস্বীকার করবে।

৹ কিতাব ও নিদর্শন সমূহ (সৃষ্টির শক্তি সুন্দরর্য) দাওয়াত দিতে থাকবে। ঈমান আনবে? কিছু দূর্বল চিত্ত ভীত সন্ত্রস্ত থাকবে, পরিবেশ পরিস্থিতি ও প্ররোচনায় হেরে না যায়। বীরশ্রেষ্ঠ যারা আল্লাহ তাদের আশ্রয় দিবেন, তাদেরকে সাহায্য সহযোগিতা দান করবেন। হেদায়েতের নিয়ামত আম করবেন। অসম্ভব সম্ভব হবে। ওয়াদা পূর্ণ হবে।

৹ আল্লাহ পাকের ঘোষনা, “তিনিই (আল্লাহ) তাঁর রাসুলকে হিদায়াত ও সত্য সুন্দর জীবন ব্যবস্থা সহ পাঠিয়েছেন তাকে অন্য সকল বাতিল জীবন ব্যবস্থার ওপর বিজয়ী হিসাবে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য, যদিও তা মুশরেকদের (মিথ্যুক ও সীমালঙ্ঘনকারীদের) নিকট অপছন্দের হয়।” – সুরা সফ: 9 আয়াত।

৹ আল্লাহ পাকের ওয়াদা :- তোমাদের ভেতর যারা ঈমান আনে এবং সৎ কর্ম করে আল্লাহ তাদেরকে প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন যে, তিনি তাদেরকে পৃথিবীতে খিলাফত দান করবেন যেমন তিনি খিলাফত দান করেছিলেন তাদের পূর্ববর্তীদেরকে এবং তিনি অবশ্যই তাদের জন্য সৃদৃঢ় করবেন তাদের দীনকে যা তিনি তাদের জন্য মনোনীত করেছেন এবং তাদের ভয় ভীতির পরিবর্তে তাদেরকে অবশ্যই নিরাপত্তা দান করবেন। তারা আমার(আল্লাহর) ইবাদাত করবে, আমার (আল্লাহর) কোন শরীক করবে না। সুরা নূর 55 আয়াত।

৺ Surely Allah is this Islam (the last version in succession), which He has chosen for Himself and for His distinguished servants in every age. He has given honor by the book and through it he has drawn the line between truth and falsehood. Irshad said: “There has come to you from Allah a light and a clear Book. By it Allah guides those who seek to please Him, and by His permission He brings them out of darkness into light and guides them to a straight path.” – Surah Al-Ma’ida: verses 15-16. “I have revealed the Qur’an with the truth and it has been revealed with the truth. We have sent you (O Muhammad SAW) only as a bearer of good news and a warner. ” Humanity will be submerged and threatened in the midst of distress and great mental turmoil. (The mind seeks) and seeks meaning in life in misguidance. And in time the book will show the way to freedom and victory: – Wish / false / shape worship, war, mutual hatred, hatred, obscenity, etc .. The denier will deny. The power of beauty (beauty) will continue to invite. Believe? Some weak hearts will be terrified, will not be defeated by environmental conditions and persuasions. .اللہ پ The Qur’an declares, “He (Allah) sent His Messenger with guidance and a true and beautiful way of life to establish him as the victor over all other false ways of life, even though it is disliked by the polytheists (liars and transgressors).” . Glory be to God: God promises those of you who believe and do righteous deeds that He will grant them caliphate on earth as He granted caliphate to those before them, and He will surely establish for them their religion which He has chosen for them and their Instead of fear, you must give them security. They will worship Me (Allah), they will not associate anything with Me (Allah). Verse 55 of Surah Noor.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *